সোমবার, ২৬ অক্টোবর ২০২০, ০৬:৪৫ অপরাহ্ন
ঘোষনা :
জেকে টিভি'র জন্য জেলা ও উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে।  আগ্রহীরা ছবি ও যোগ্যতাসহ জীবন বৃত্তান্ত (সি.ভি)  পাঠান। ই-মেইল: jktv1401@gmail.com

দৌলতপুরে এক আতঙ্কের নাম এসআই মিরাজ

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৯
  • ২২১ বার নিউজটি পড়া হয়েছে

দৌলতপুর প্রতিনিধি : কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর থানার এসআই মিরাজের বিরুদ্ধেই গ্রেফতার বাণিজ্যে ও মাদকের মামলায় ফাঁসানোর অভিযোগ উঠেছে
এসআই মিরাজ দৌলতপুর থানায় যোগদান করে গড়ে তুলেছে গ্রেফতার- বাণিজ্যের ভয়ানক সিন্ডিকেট
এই সিন্ডিকেটের মাধ্যমে অসহায় নিরীহ জনসাধারণকে মাদকের মামলায় ফাঁসিয়ে দীর্ঘদিন ধরে ঘুষ বাণিজ্য চালিয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগে জানা গেছে। ইতোমধ্যে কুষ্টিয়া থেকে প্রকাশিত ঘুষখোর দুর্নীতিবাজ এসআই মিরাজের বিরুদ্ধে অনুসন্ধানি তথ্যবহুল সংবাদ প্রকাশিত হয় ।
তারপরেও মিরাজ তার অপকর্ম থেকে সরে আসেনি, দৌলতপুরে এক আতঙ্কের নাম এস আই মিরাজ , অনুসন্ধানে জানা যায় গোপালগঞ্জ জেলার নাম ভাঙ্গিয়ে ঘুষ বাণিজ্য সহ নানা অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে এতে পুলিশের চেইন অব কমান্ড ভেঙ্গে যেতে বসেছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক দৌলতপুর থানায় কর্তব্যরত একাধিক পুলিশ অফিসার সোনালী খবর প্রতিবেদককে ,জানিয়ে বলেন , মিরাজের অপকর্মে আমরা বিব্রত ,আমরা শুনেছি ইতিমধ্যে তার বিরুদ্ধে তথ্যবহুল সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। ভূক্তভোগীদের অভিযোগে আরও জানা যায়, মিরাজ তার স্বার্থসিদ্ধির জন্য শেখ পরিবার সহ স্বয়ং প্রধানমন্ত্রীর নাম ও ভাঙ্গায় ।পূর্বের কর্মস্থলেও রয়েছে তার বিরুদ্ধে ব্যাপক ঘুষ বাণিজ্যের অভিযোগ। নিরীহ মানুষকে মামলার ভয় দেখিয়ে পুলিশের উর্দ্ধতন কর্মকর্তার নাম ভাঙ্গিয়ে জিম্মি করে হাতিয়ে নিচ্ছে বিপুল পরিমান কালো টাকা। কুষ্টিয়া পুলিশ সুপার এস এম তানভীর আরাফাত পিপিএম বার যোগদান করেই মাদকের বিরুদ্ধে কঠোর হুঁশিয়ারিসহ সেবার নামে দুর্নীতিবাজ পুলিশ অফিসারদের উদ্দেশ্য করে বলেন, থানায় সেবা নিতে আসা প্রার্থীদেরকে হয়রানি না করে
সঠিক সেবা নিশ্চিত করবার জন্য সংশ্লিষ্ট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসিদের নির্দেশ প্রদান করেন। কিন্তু নির্দেশনা তোয়াক্কা না করেই মিরাজ গোপালগঞ্জের পরিচয় দিয়ে ঘুষ বাণিজ্য চালিয়ে যাচ্ছে বলে অভিযোগে জানা গেছে ।গতকাল উপজেলার খলিসাকুন্ডি গ্রাম থেকে, মাদক সেবনকালে, খলিসাকুন্ডি পুলিশ ক্যাম্পের আই সি এ এস আই খোরশেদ আলম পাঁচ জনকে গ্রেফতার করে এবিষয়ে মাদকদ্রব্য আইনে দৌলতপুর থানায় একটি মামলা দায়ের হয় মামলা নং 38 তারিখ 20/10/2019

কিন্তু দুইজন অপ্রাপ্ত বয়স হওয়ায় থানা থেকে সমাজসেবার উচ্চমান সহকারীর মাধ্যমে ছেড়ে দেওয়া হয়l
ছেড়ে দেয় হয় এবং তিন জনকে কোর্টে প্রেরণ করে। থানা সূত্রে জানা যায়, মামলাটি তদন্তভার গ্রহণ করে এসআই মিরাজ ।ওই মামলায় অন্তর্ভুক্ত আসামির পরিবারবর্গ জানান দ্রুত কোর্টে প্রেরণ করার জন্য এসআই মিরাজ তাদের কাছ থেকে মোটা অংকের টাকা নেয় ।

এ বিষয়ে পুলিশ সুপারের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন আমি এখন ব্যস্ত আছি, আমাদের লোক মারা গেছে আপনি সাংবাদিক বললেই তো হবে না , আমাদের এখন ও কেউ অভিযোগ দেয়নি অভিযোগ দিলে ব্যবস্থা নিব ।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....
© All rights reserved © jknewstv.com
Developed By Rinku
themes254654365664
error: Content is protected !!