মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৫:৫৪ অপরাহ্ন
ঘোষনা :
জেকে টিভি'র জন্য জেলা ও উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে।  আগ্রহীরা ছবি ও যোগ্যতাসহ জীবন বৃত্তান্ত (সি.ভি)  পাঠান। ই-মেইল: jktv1401@gmail.com

হবিগঞ্জ পুলিশের মানবিকতায়, ভিক্ষুক রাজা মিয়া’র মৃতদেহ কুষ্টিয়ায় নিজ এলাকায় দাফন

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : রবিবার, ৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২০
  • ১৩৬ বার নিউজটি পড়া হয়েছে

ভিক্ষুক রাজা মিয়া, বয়স অনুমান ৫০ বছর। জীর্ন শীর্ন রোগা দুর্বল লোক। তার মুল বাড়ী কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালি থানার তরুলমত গ্রামে। অভাবের তাড়নায় প্রায় ৮/১০ বৎসর পূর্বে চলে আসেন শায়েস্তাগঞ্জ এলাকায়। ভিক্ষা করে শায়েস্তাগঞ্জ রেলস্টেশনের পাশে ছোট ঝুপড়ি ঘরে থাকতেন। পরিবার পরিজন কেউ সাথে নাই। একা একা নিঃসঙ্গ মানবেতর জীবন। স্টেশনে বসেই ভিক্ষা করিতেন। সাথে থাকতো কাগজে লেখা একটি চিরকুট। চিরকুটে লেখা আমার নাম রাজা মিয়া, আমি অসুস্থ’, এই নাম্বারে দয়া করে জানিয়ে দিন। ০১৭২৪-৫২১৪০৭. কুমারখালি থানা, জেলা-কুষ্টিয়া। গত ০৬/০২/২০২০ ইং তারিখ শায়েস্তাগঞ্জ স্টেশনের পাশে ঝুপড়ি ঘরে শ্বাস-কষ্ট জনিত কারনে অসুস্থ’ হয়ে পড়িলে স্টেশনে তাহার ভিক্ষুক এক সহকর্মী তাহাকে সিএনজি দিয়া হবিগঞ্জ সদর হাসপাতালে নিয়া আসিলে শ্বাস-কষ্ট জনিত রোগে তিনি মৃত্যুবরন করেন। মৃত ভিক্ষুক রাজা মিয়ার কোন আত্মীয় স্বজন না থাকায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ মাসুক আলীকে অবহিত করেন। অফিসার ইনচার্জ, থানার এসআই খোরশেদ আলম সহ হাসপাতালে গিয়ে মৃত রাজা মিয়ার কোন আত্মীয় স্বজন না থাকায় চিরকুটে লেখা মোবাইল নাম্বারে ফোন দিলে কুষ্টিয়া থেকে তাহার স্ত্রী ফোন ধরেন। তাহার স্ত্রীকে রাজা মিয়ার মৃত্যুর সংবাদ জানানো হয়। তাহার স্ত্রী জানান রাজা মিয়া পূর্ব থেকে অসুস্থ’। মৃতদেহ হবিগঞ্জ থেকে কুষ্টিয়ায় নেওয়ার মত কোন সামর্থ নাই। পরবর্তীতে অফিসার ইনচার্জ বিষয়টি অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, সদর সার্কেল রবিউল ইসলাম, পিপিএম এবং পুলিশ সুপার মোহাম্মদ উল্ল্যা, বিপিএম, পিপিএমকে অবহিত করেন। তাহাদের অনুমতিক্রমে অফিসার ইনচার্জ মানবিক কারনে থানার অন্যান্য অফিসারদের নিকট থেকে আর্থিক সহায়তা নিয়ে ১৫ হাজার টাকা দিয়ে একটি এ্যাম্বুল্যান্স রিজার্ভ করে থানার একজন পুলিশ সদস্য সহ মৃতদেহ কুষ্টিয়ার কুমারখালিতে প্রেরন করেন। কুমারখালি থানা পুলিশের সাথে যোগাযোগ করে ০৮/০২/২০২০ তারিখ সকাল বেলা মৃতদেহ রাজা মিয়ার বাড়ীতে নিয়া গেলে কুমারখালি থানা পুলিশের উপস্থিতিতে মৃত রাজা মিয়ার মৃতদেহ তাহার পরিবার ও আত্মীয় স্বজনদের নিকট বুঝিয়ে দেওয়া হয় এবং দাফন কাফন সম্পন্ন হয়। জানা যায়, মৃত রাজা মিয়া ১ ছেলে ও ০২ মেয়ে। রাজা মিয়া আর্থিক ভাবে অস্বচ্ছল ছিল। ভবঘুরে হয়ে বিগত ৭/৮ বছর যাবৎ শায়েস্তাগঞ্জ রেলস্টেশন এলাকায় ভিক্ষা করতেন। পুলিশের মানবিকতা ও সহযোগীতার কারনে রাজা মিয়ার মত একজন অসহায় ভিক্ষুক সুদুর কুষ্টিয়ায় নিজ বাড়ীতে লাশ দাফনের সুযোগ পাওয়ায় তাহার পরিবার ও আত্মীয় স্বজন হবিগঞ্জ পুলিশের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....
© All rights reserved © jknewstv.com
Developed By Rinku
themes254654365664
error: Content is protected !!