শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০২:৫৪ পূর্বাহ্ন
ঘোষনা :
জেকে টিভি'র জন্য জেলা ও উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে।  আগ্রহীরা ছবি ও যোগ্যতাসহ জীবন বৃত্তান্ত (সি.ভি)  পাঠান। ই-মেইল: jktv1401@gmail.com

শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের টিউশন ফি মওকুফের দাবি অভিভাবকদের

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ৯ এপ্রিল, ২০২০
  • ১০২ বার নিউজটি পড়া হয়েছে

করোনাভাইরাসের কারণে গত ১৮ মার্চ থেকে বন্ধ রয়েছে দেশের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। জানা গেছে ঈদুল ফিতরের আগে আর খোলা যাচ্ছে না শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।

এ অবস্থায় বন্ধের দিনগুলোতে শিক্ষার্থীদের টিউশন ফি মওকুফ করার দাবি জানিয়ে আসছে অভিভাবকরা। তবে প্রতিষ্ঠানগুলোর পক্ষ থেকে এখনও এ বিষয়ে কোনো চিন্তা নেই বলে জানা গেছে। কুষ্টিয়ার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানদের সঙ্গে কথা বলে বিষয়টি জানা গেছে।
অভিভাবকরা বলছেন, চলমান করোনা পরিস্থিতিতে দেশজুড়ে লকডাউন অবস্থা। এ সময়ের মধ্যে সকলকে নিজ বাড়ি থেকে বের না হওয়ার নিদের্শনা দেয়া হয়েছে। এতে করে মানুষের জীবন ব্যবস্থা অচল হয়ে পড়েছে। এর ফলে অনেকে মানবেতরভাবে জীবন-যাপন করে দিন পার করছেন। করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হওয়ার পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুললে সন্তানের টিউশন দেওয়ার মতো অনেকের সামর্থ নেই।তারা জানান, বর্তমান পরিস্থিতিতে পরিবার নিয়ে অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়ে গেছেন। কবে এ পরিস্থিতিতে থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে, তা কেউ বলতে পারছে না। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে সন্তানের স্কুলে মাসিক বেতন দেওয়ার সামর্থও নেই অনেকের। তাই পরিস্থিতির ওপর বিবেচনা করে মানবিকভাবে সংকটময় পরিস্থিতির দিনগুলোতে শিক্ষার্থীদের টিউশন মাফ করা উচিত।বৃহস্পতিবার এ বিষয়ে জানতে চাইলে কুষ্টিয়ার এক শিক্ষক বলেন, ‘শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে ঠিক আছে, তবে এখন পর্যন্ত শিক্ষার্থীদের টিউশন ফি বা বেতন কোন কিছুর মওকুফের কোন সিদ্ধান্ত হয়নি, এ সংক্রান্ত কোন নির্দেশনা আমাদের কাছে কোনো আসেনি। টিউশন ফি মওকুফ করার সিদ্ধান্ত হলে তা মেনে নেওয়া হবে বলে জানান।তবে শিক্ষার্থী-অভিভাব দের সমস্যাগুলো অবশ্যই বিবেচনা করা হবে। কেউ সমস্যায় থাকলে তার কাছে মাসিক বেতন দিতে চাপ দেওয়া হবে না বলেও জানান তিনি।কুষ্টিয়া স্কুল অব লরিয়েষ্ট কর্তৃপক্ষ জানায়, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান চলে মূলত টিউশন ফি বেতন বা অন্যান্য বিষয়ের ওপর নির্ভর করে। যেহেতু এটি একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠান এবং স্বায়ত্তশাসিত প্রতিষ্ঠান, সুতরাং প্রত্যেক মাসে খরচ আছে। সবকিছু মিলিয়ে টিউশন ফি বেতন মওকুফের সিদ্ধান্ত এখন পর্যন্ত হয়নি এবং কোনো নির্দেশনাও আসেনি।এ বিষয়ে জানতে চাইলে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক সৈয়দ গোলাম ফারুক বলেন, ‘পরিস্থিতি কোন দিকে যাবে, তা এখনো নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না। আমাদের সররারি-বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। দুই ধরনের প্রতিষ্ঠান টিউশন ফি’র বড় পার্থক্য রয়েছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠান যদি বেশি দিন বন্ধ রাখতে হয়, তবে এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে।পরিস্থিতি বিবেচনা করে এ সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....
© All rights reserved © jknewstv.com
Developed By Rinku
themes254654365664
error: Content is protected !!