শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০৪:৫৪ পূর্বাহ্ন
ঘোষনা :
জেকে টিভি'র জন্য জেলা ও উপজেলা প্রতিনিধি নিয়োগ দেওয়া হবে।  আগ্রহীরা ছবি ও যোগ্যতাসহ জীবন বৃত্তান্ত (সি.ভি)  পাঠান। ই-মেইল: jktv1401@gmail.com

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা’র কাছে ছাত্রলীগের একনিষ্ঠ কর্মী মাসিদুল ইসলাম মানিকের খোলা চিঠি

Reporter Name
  • আপডেট টাইম : শুক্রবার, ১০ এপ্রিল, ২০২০
  • ৯৪ বার নিউজটি পড়া হয়েছে

মহাত্মন,

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রহমাতুল্লাহি ওয়া বারাকাতুহু। দেশ ও জাতির এই ক্লান্তিলগ্নে ১৭ কোটি মানুষের স্বাস্থ্য, খাবার ও চিকিৎসা নিয়ে আপনি অনেক ব্যস্ত । আপনার চোখে ঘুম নেই। আমরা ইতমধ্যে জেনেছি, দেশে যখন পেঁয়াজ সংকট দেখা দিয়েছিলো আপনি নিজেও তখন পেঁয়াজ খাওয়া বন্ধ করে দিয়েছিলেন, জানিনা বাঙালি জাতির এই দু:সময়ে আপনি কতটা ভালো আছেন। তবে আমরা দোঁয়া করি মহান করুনাময় রাব্বুল আলামিন আপনাকে কোটি কোটি মানুষের দোঁয়ার বরকতে দীর্ঘায়ু এবং সুস্থ্য থাকার তৌফিক দান করুন।

শ্রদ্ধেয় নেত্রী, আপনি মমতাময়ী, জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা, বাঙালি জাতির অভিভাবক, বাংলাদেশের চার চারবারের সফল প্রধানমন্ত্রী। প্রিয় নেত্রী, দেশ স্বাধীনের পর আমরা বাংলাদেশের মানুষ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ ও নীতিতে বিশ্বাস করে, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের সোনার বাংলা গড়ার চেষ্টায় কাজ করে যাচ্ছি। আপনি বাংলাদেশ ও বাঙালি জাতির দায়িত্ব নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর আসন গ্রহণ করার পর থেকে, আপনার আদর্শ ও নৈতিকতার ফসল হিসেবে দরিদ্র বাংলাদেশকে বর্তমানে বিশ্ব দরবারে উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে পরিচিতি লাভ করিয়েছেন এবং আগামী কিছুদিনের ভিতর বাংলাদেশকে মধ্যম আয়ের দেশে রূপ দেওয়ার চেষ্টা ও পরিকল্পনায় দিনরাত অক্লান্ত মেধা ও পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। হাতে নিয়েছেন বিশাল বিশাল মেগা প্রকল্প। অনেক প্রকল্প সমাপ্তীর পথে আর কিছু প্রকল্পের কাজ চলমান। ঠিক এমনই সময় একাত্তরের দুর্ভিক্ষের মত বিশ্বে মহামারি আকার ধারণ করেছে করোনা ভাইরাস। সকল দেশের সাথে আজ আমরা করোনায় আতঙ্ক এবং করোনায় আক্রান্ত । তাই দেশের জনসাধারণের নিরাপত্তার স্বার্থে আপনি যে মহৎ উদ্যোগ নিয়েছেন তা সারা বাঙালি জাতি তথা বিশ্বের দরবারে প্রশংসনীয়।

শ্রদ্ধেয় নেত্রী, আপনার নির্দেশে বাংলাদেশের সকল প্রশাসন এবং ডাক্তার ও সামাজিক সংগঠনসহ বাংলাদেশের জেলা উপজেলা ও ওয়ার্ড পর্যায়ের নেতাকর্মীরা সাধারণ মানুষকে সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে তাদের কার্যক্রম দৃশ্যমান রেখেছেন। প্রিয় নেত্রী বাংলাদেশের মানুষ যখন লকডাউনে, ঠিক তখনি আপনি হাতে নিয়েছেন মহাপরিকল্পনা,তারই ধারাবাহিকতায় আপনি সারা বাংলাদেশের গৃহবন্দী লোকজনদেরকে ঘরে ঘরে খাবার পৌঁছে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। সেই নির্দেশনা অনুযায়ী, জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, সংসদ সদস্য, উপজেলা চেয়ারম্যান, ইউপি চেয়ারম্যান, মেয়র, কাউন্সিলর ও ইউপি সদস্য এবং সেচ্ছাসেবী সদস্যরাও নিজ নিজ এলাকায় খাদ্য বিতরণের তালিকা তৈরি করে অসহায় মানুষকে ত্রাণ সামগ্রী দিয়ে সহায়তা করে আসছেন।

প্রিয় নেত্রী, আজ আবার বাঙালী জাতির পিতার সেই কম্বল বিষয়ক ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটতে চলেছে। অতি দুঃখের সহিত বলতে হচ্ছে যে, বাংলাদেশে যখন করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১২৪জন, ঠিক তখনই বাংলাদেশের চাউল চোরের সংখ্যা ২০৪জন।

প্রিয় নেত্রী, আমরা যারা আওয়ামীলীগের তৃণমুল পর্যায়ের নেতাকর্মী তারা অন্তত জানি এবং স্বীকার করি, আপনি আপনার সাধ্যমত সকল সাংসদ এবং নেতাকর্মীদের চাহিদা পূরণ করেছেন। তবুও কেন জাতীর এই ক্লান্তীলগ্নে এমন লজ্জাস্কর ঘটনা ঘটতেছে!

দুঃখ ভারা ক্লান্ত মন নিয়ে আজ লিখতে বাধ্য হলাম, প্রিয় নেত্রী আপনার যত সুনাম ছিল, যত অর্জন ছিল, এই চোরের দলেরা মাটির সাথে মিশিয়ে দিয়েছে এবং আপনাকে মাইনাসের পাঁয়তারা চালাচ্ছে। কিছু জনপ্রতিনিধি তাদের নিজের স্বার্থ হাসিলের লক্ষ্যে বাংলাদেশের সাধারণ মানুষের মন থেকে আপনার খ্যাতি নষ্ট করার একটি পরিকল্পনা বলে মনে হয় আমার। প্রিয় নেত্রী, বর্তমানে বাংলাদেশে যারা মধ্যবিত্ত এবং নিম্ন মধ্যবিত্ত পর্যায়ের লোক তারা ঘরের ভিতর চাপা কষ্ট নিয়ে ক্ষুধার সাথে যুদ্ধ করে বেঁচে আছে। তাদের খোঁজ নেওয়ার মত কোন লোক নাই। মধ্যম আয়ের মানুষেরা কোনও জেলা বা উপজেলায় ত্রাণ সহায়তা পাচ্ছেনা। প্রিয় নেত্রী, বাঙালি জাতি তথা সারা বিশ্বের মমতাময়ী মা আপনি, অতি দ্রুত এমন একটি হট লাইন নাম্বার চালু করেন, যেখানে কল করে কোন প্রকার সেলফি বা সম্মানহানি মুলক কোন প্রচার না হয়ে ঘরে বসেই ত্রাণ সহায়তা পাবে। সারা বিশ্ব তথা বাংলাদেশে যে পরিমাণ করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়তেছে এভাবে যদি আর কিছু দিন চলে, তবে হয়তো লকডাউন শেষ হয়ে যাবে। তখন এমনও হতে পারে, ঘরের দরজা খুলে দেখা যাবে, করোনা আক্রান্ত নয়, খাবারের অনাহারে মারা গিয়েছে হাজার হাজার জনগণ।

প্রিয় দেশরত্ন, বাংলাদেশে এখনো এমন কিছু মানুষ আছে তারা সাত দিন না খেয়ে থাকলেও কারো কাছে হাত পাততেও যাবে না এবং আপনার নির্দেশ অমান্য করে ঘরের বাহিরে বের হবেনা। অতএব,মাননীয় নেত্রী বাংলাদেশে মোট জনসংখ্যার হিসাব আপনার কাছে আছে, প্রত্যেকটা ওয়ার্ডের ভোটার অনুযায়ী লিস্ট আপনার কাছে আছে, ভোটারের লিস্ট অনুযায়ী, কোথায় কার বাড়ি সকল জনপ্রতিনিধিগণ তাদের চিনেন, তাদের বাড়িতে খাবার পৌঁছে দেওয়ার জোর দাবি জানাচ্ছি।

প্রিয় নেত্রী, আপনি যদি এরকম সিদ্ধান্ত নিতে দেরি করেন, তাহলে আমার বিশ্বাস এই বেঈমান মুস্তাকের দলেরা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে যেভাবে শেষ করে, আপনিসহ বাঙালি জাতিকে করেছে এতিম। তেমনি, ষড়যন্ত্রের পুনরাবৃত্তি করে ক্ষত বিক্ষত করে দিবে আপনার হৃদয়ে থাকা বাঙালী জাতি ও আপনাকে। এখনই সময় আপনি প্রশাসনকে এরকম ক্ষমতা দিন, ত্রাণের চাউল চুরি করা হলে তাকে সরাসরি ক্রসফায়ার দেওয়া হবে। আপনি দেখবেন এক কেজি চাউল ও আর ঘরে নেওয়ার সাহস পাবে না মোস্তাকের দলেরা।

প্রিয় নেত্রী, আরেকটি বিষয় না বললেই নয়, বর্তমানে জনপ্রতিনিধিরা যে লিস্ট করে চাউল দিচ্ছে, তার ৫০% কোন গরীব অসহায় মানুষের লিস্ট নয়, এগুলা কোন মধ্যবর্তী আয়ের লোকের লিস্ট নয়, এই লিস্ট মামু, খালু, চাচা, চাচী, ফুফা, ফুফু, দাদি, দাদা, ভাইদের লিস্ট। তাই মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তদন্তের স্বার্থে টাস্ক ফোর্স গঠন করুন। প্রত্যেক উপজেলায় যাচাই করে দেখুন, মানুষের ঘরে কতটুকু ত্রাণ সহায়তা পৌঁছেছে?

প্রিয় নেত্রী, ছাত্র জীবন থেকে এখন পর্যন্ত জাতির জনকের আদর্শে পথ চলছি, আগামীতেও চলবো, যদি বেঁচে থাকি, তবে আপনার স্বদয় অনুমতিক্রমে আপনার হাতে বর্তমান চাউল চোরদের তালিকা দিবো। ইনশাআল্লাহ্

ধন্যবাদ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, আশাকরি আপনি অবশ্যই ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু,

মোঃ মাসিদুল ইসলাম মানিক,

ছাত্রলীগের একনিষ্ঠ কর্মী,

দৌলতপুর, কুষ্টিয়া।

নিউজটি শেয়ার করুন..

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর ....
© All rights reserved © jknewstv.com
Developed By Rinku
themes254654365664
error: Content is protected !!